Saturday, 04 Jul, 7.17 am আজকাল.in

হোম
মমতা: দুর্নীতি সহ্য করব না

দীপঙ্কর নন্দী: আমফানের ত্রাণের টাকা নিয়ে যারা দুর্নীতি করেছে, তাদের রেয়াত করা হবে না। এরা দলকে অপমান করেছে। দল থেকে এদের বের করে দিলেও দলের কোনও ক্ষতি হবে না। শুক্রবার ভিডিও কনফারেন্সে দলের বৈঠকে এ কথা বলেছেন দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি। তঁার নির্দেশে ২১ জুলাইকে সামনে রেখে, লকডাউনের সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে সবাইকে রাস্তায় নামতে হবে।
এদিন নেতাদের উদ্দেশে দলনেত্রী বলেছেন, '‌বিজেপি-‌র বিরুদ্ধে রাস্তায় নামুন। ‌২১ জুলাই আমাদের চোখের সামনে আছে। লকডাউনের জন্য কোনও জমায়েত করা যাবে না। সিইএসসি-‌র সামনে ওই দিন সুব্রত বক্সি-‌সহ অন্য নেতারা মালা দেবেন। প্রতিটি বুথে ৩ জনের ওপর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শহিদ দিবস পালন করার জন্য। সাংসদ, বিধায়কেরাও থাকবেন। ঠিক দুটোর সময় আমি বলব। লাইভে থাকব। আমার বক্তৃতা আপনারা যাতে শুনতে পান, দল সেই ব্যবস্থা করে দেবে। আপনাদের কাছে সব পৌঁছে যাবে।'‌
মূলত ২১ জুলাই ভার্চুয়াল সভাই করছেন দলনেত্রী। ওই দিন প্রতিটি বুথে সামাজিক দূরত্ব মেনে শহিদ দিবস পালন করা হবে। দলনেত্রী বলেছেন, '‌ওই দিন দুপুর একটা থেকে দুটো প্রতিটি বুথে, শহিদবেদিতে শ্রদ্ধা জানানো হবে।'‌
জেলায় জেলায় দলের নেতাদের কাছে নেত্রীর বক্তব্যের '‌লিঙ্ক'‌ পাঠিয়ে দেওয়া হবে। যে যেমন ভাবে পারবেন, নেত্রীর বক্তৃতা শোনাবেন। কেউ বড় স্ক্রিন লাগাতে পারেন। কেউ এলইডি লাগাতে পারেন। ল্যাপটপেও শোনানো যেতে পারে।
দলনেত্রী এদিন সংগঠনকে শক্তিশালী করার ওপর জোর দিয়েছেন। তঁার নির্দেশ, ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। করোনা এবং আমফান নিয়ে বিজেপি-‌র নেতারা অপপ্রচার করছে। যথাযোগ্য জবাব দিতে হবে। নেত্রী এদিন দুটি স্লোগানের কথা বলেছেন:‌ ১)‌ বাংলার বঞ্চনা মানছি না, মানব না; ২)‌ দেশের খাবে, দেশের পরবে, স্বদেশকেই বিক্রি করবে।
তিনি বলেছেন, বিজেপি ত্রাণ নিয়ে গোলমাল করছে। বিডিও অফিস ভাঙচুর করছে। অস্থিরতা সৃষ্টি করতে চাইছে। পাল্টা প্রচারে নামুন। কতকগুলি কর্মসূচি এদিন ঘোষণা করা হয়েছে।
‌১)‌ বেসরকারীকরণের বিরুদ্ধে ৭ জুলাই সমস্ত রেল স্টেশনে বিক্ষোভ।
২)‌ ২২ বার জ্বালানির দাম বাড়ানো হয়েছে। ৬ থেকে ১৩ জুলাই সব পেট্রোল পাম্পের সামনে বিক্ষোভ।
৩)‌ ৮ জুলাই বাংলার সব কর্মী নিজেদের বাড়ির সামনে '‌কেন জ্বালানির দাম বাড়ানো হল'‌ প্ল্যাকার্ডে লিখে এক ঘণ্টা দঁাড়িয়ে থাকবেন।
৪)‌ ৯ জুলাই কোল ইন্ডিয়ার সামনে বিক্ষোভ।
৫)‌ ১০ জুলাই সমবায় ব্যাঙ্কগুলির সামনে প্রতিবাদ-‌সভা।
৬)‌ ২১ জুলাই ‌রাজ্যের ৮০ হাজার বুথে দুপুর একটা থেকে দুটো শহিদ দিবস পালন করা হবে। দুপুর দুটো থেকে তিনটে নেত্রী বক্তব্য পেশ করবেন।
কর্মসূচি পালন করতে হবে মাস্ক পরে এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে। সরকার যে-‌পরিষেবাগুলি দিচ্ছে, সব ব্লকে তা প্রচার করতে হবে। স্বাস্থ্যসাথি ও রেশন নিয়ে যে সুযোগ-‌সুবিধে দেওয়া হচ্ছে, তা মানুষকে জানাতে হবে।
মমতা ব্যানার্জি এদিন জানিয়েছেন, গত বিধানসভা নির্বাচনে যে-‌সব আসনে দল জিতেছে, আগামী নির্বাচনে সেই সব আসনে অতি অবশ্যই জিততে হবে। জনসংযোগ বাড়াতে হবে। ঝগড়াঝঁাটি মেটাতে হবে। তিনি সকলকে ঝঁাপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন। নদিয়া, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, জঙ্গলমহল, দুই ২৪ পরগনা, বর্ধমানের নেতাদের তিনি বলে দিয়েছেন, অনেক অভিযোগ আছে, সেগুলো মিটিয়ে দলকে শক্তিশালী করতে হবে। এদিন উত্তরবঙ্গের নেতাদের নাম ধরে তিনি বলেছেন, নিজেদের বিধানসভাগুলোর দিকে নজর দিন। কীভাবে বিজেপি-‌র বিরুদ্ধে আরও বেশি করে নামা যায়, পরিকল্পনা করুন। শুক্রবার দলনেত্রী বিকেল তিনটে নাগাদ ভিডিও কনফারেন্স শুরু করেন। টানা দেড় ঘণ্টা বক্তব্য পেশ করেন।‌

Dailyhunt
Disclaimer: This story is auto-aggregated by a computer program and has not been created or edited by Dailyhunt. Publisher: Aajkaal
Top