Thursday, 16 Sep, 11.22 pm দৈনিক স্টেটসম্যান

স্পোর্টস
'জ্যাভলিনের জন্যই পড়াশোনা ছেড়েছিলাম', কলকাতায় এসে জানালেন সোনার ছেলে নীরজ

মানসিক কাঠিন্য ও আত্মবিশ্বাসের উপর ভর করেই ভারতকে সোনা এনে দিয়েছেন নীরজ চোপড়া। ফলে নীরজ চোপড়ার সঙ্গে বাকিদের তুলনা চলে না। তিনি অন্যদের চেয়ে অনেকটা আলাদা বলেই না আজ তিনি সোনার ছেলে।

টোকিও অলিম্পিকে জ্যাভলিনের সেরা পারফরমেন্স করার পরে তিনি আর অন্যদিকে তাকাননি। লক্ষ্য স্থির রেখে তিনি শেষ পর্যন্ত সোনা এনে দেন ভারতকে। আর জাভলিনকে নিয়ে যান অন্য উচ্চতায়।

বুধবার কলকাতায় হাজির ছিলেন সেই সোনার ছেলে সম্বর্ধনা নেওয়ার জন্য। এই মহাতারকাকে সম্বর্ধিত করতে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মনোজ তিওয়ারি ও দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু। লেকটাউনে শ্রীভূমির পুজো উদ্বোধনে নীরজাকে ফের কলকাতায় আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সুজিত বসু।

এদিন সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে নীরজ বলেন, ছোটোবেলায় পড়াশোনা করার জন্য প্রত্যেকের বাড়ি থেকে চাপ আসে। আমার ক্ষেত্রে ঠিক এর উল্টোটাই ঘটেছে। সে কারণে আমার আর উচচশিক্ষা নেওয়া হয়ে ওঠেনি। খেলাকেই ধ্যানজ্ঞান হিসেবে বেছে নিয়েছিলাম। পুরো পরিবার আমার পাশেই ছিল। আমি তাদেরকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছিলাম অ্যাথলিট হওয়াটাই আমার স্বপ্ন।

পদক জয়ের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে নীরজ বলেন, "কোনওদিন স্বপ্নেও ভাবিনি অলিম্পিকে যাব। সোনা পাওয়া তো দূরের কথা। তবে যখন যাওয়ার সুযোগ পেলাম। তখন ভাবলাম প্রতিযোগিতায় জিততেই হবে। এটাই আমার একমাত্র লক্ষ্য ছিল। তবে পদকের রং কোনটা হবে তা তো আর আগে থেকে কেউ বলতে পারে না। এক্ষেত্রে ভাগ্য আমার সঙ্গে সাথ দিয়েছে। পরিশ্রম সফল হয়েছে। দেশের জন্য সোনা জিততে পেরেছি।

ফলে ভালো লাগছে। আসলে সোনার উপরে তো আর কিছু হয় না। প্রতিযোগিতায় সফল হওয়ার পর অলিম্পিকের পোডিয়ামে যখন দাঁড়াই তখন দেশের জাতীয় সঙ্গীত বাজছিল আর আমার চোখে জল এসে গিয়েছিল।

এদিন এভাবেই টোকিও অলিম্পিকে নিজের সোনা জয়ের মুহূর্ত এবং তারপর পদক প্রাপ্তির ঘটনাকে সবার সামনে তুলে ধরেন নীরজ। এখনও পর্যন্ত জ্যাভলিনে অলিম্পিকের মঞ্চে ৯০,৫৭ মিটার রেকর্ড রয়েছে নীরজের কাছে রয়েছে জাতীয় রেকর্ড ৮৮.০৭ মিটার। তবে নীরজের স্বপ্ন তিনি চান ৯০ মিটারের বেশি দূরত্বে জ্যাভলিন ছুড়তে।

'পানি পথ কা পুত্তরে'র সাফ কথা অলিম্পিকে সোনা জিতেছি, স্বপ্ন পুরণ হয়েছে কিন্তু এখানেই সোনা থেমে থাকতে চাই অলিম্পিকে জ্যাভলিনের যে কের্ড রয়েছে সেই রেকর্ড আমার নামে করতে চাই। এখন কিছুদিন বিশ্রামে রয়েছি ঠিকই, কিন্তু অনুশীলন শুরু করে দেব খুব শীঘ্রই।

Dailyhunt
Disclaimer: This story is auto-aggregated by a computer program and has not been created or edited by Dailyhunt. Publisher: Dainikstatesman
Top