Sunday, 24 Jan, 7.16 pm Hindusthan Samachar

খবর
প্ৰধানমন্ত্ৰী মোদীর বলিষ্ঠ পদক্ষেপের ফলস্বরূপ বিনা রক্তপাতে কাশ্মীরের পঞ্চায়েত এবং অসমের বিটিআর নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে : অমিত

কোকরাঝাড় (অসম), ২৪ জানুয়ারি (হি.স.) : প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদীর অক্লান্ত প্ৰচেষ্টা এবং বলিষ্ঠ পদক্ষেপের ফলস্বরূপ কাশ্মীরে পঞ্চায়েত এবং অসমের বোড়োল্যান্ড টেরিটরিয়াল রিজিওন (বিটিআর)-এর নির্বাচনে এক ফোঁটা রক্ত ঝরেনি, একটি গুলিও ছুঁড়তে হয়নি পুলিশকে। দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা করতে পারে কেবলমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও তাঁর নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার। নরেন্দ্র মোদীর জন্যই আজ বোড়োল্যান্ড টেরিটরিয়াল এরিয়া ডিস্ট্রিক্ট (বিটিএডি)-এ শান্তি ফিরে এসেছে। রবিবার কোকরাঝাড়ের বডোফানগরে গ্রিনফিল্ডে বিটিআর চুক্তির প্ৰথম বৰ্ষপূৰ্তি উপলক্ষ্যে আয়োজিত বিশাল সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দিচ্ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

লক্ষাধিক জনতার উপস্থিতিতে আয়োজিত সমাবেশে বিটিআর শান্তিচুক্তির প্রেক্ষাপট তুলে বলেন, বড়ো জনগোষ্ঠী আজ দেশের একটি উল্লেখযোগ্য জনগোষ্ঠী হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। বড়ো জনগোষ্ঠীর ভাষা-সংস্কৃতি, পরিচয় রক্ষা করবে বিজেপি। চুক্তি অনুযায়ী গৃহীত কয়েকটি প্রতিশ্রুতি ইতিমধ্যে বিজেপি সরকার বাস্তবায়িত করেছে। আজই সমাবেশের সভামঞ্চ থেকে আত্মসমর্পণকারী প্রায় সাতশো উগ্রপন্থীর কর্মসংস্থানের জন্য চার লক্ষ টাকা করে আর্থিক অনুদানের সূচনা করেছেন অমিত শাহ। এই প্রসঙ্গ টেনে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, চুক্তি অনুযায়ী বড়ো ভাষাকে রাজ্য সরকারের সহযোগী ভাষা হিসেবে মর্যাদা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল ও অর্থ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মারা।

বিটিআর চুক্তির প্ৰথম বৰ্ষপূৰ্তি সমাবেশে বড়ো অবড়ো জনগোষ্ঠীয় সৰ্বশ্ৰেণির জনতার আগমনকে বিটিএডি এলাকায় যে সম্প্রীতির বাতাবরণ ফিরে এসেছে তার জন্য বিটিআর-প্রধান প্রমোদ বড়োর ইউপিপিএল এবং বিজেপি দলের সর্বস্তরের কার্যকর্তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন অমিত শাহ। তিনি বলেন, এর আগে তিনি বহুবার কোকরাঝাড়ে এসেছেন, কিন্তু আজকের পরিবেশ কোনওদিন দেখেননি। তিনি বলেন, বড়োল্যান্ডে এতদিন বড়ো এবং অবড়োর মধ্যে সংঘাত জিইয়ে রাখতে একটি প্ৰতিক্ৰিয়াশীল চক্ৰ অহরহ অপচেষ্টা চালিয়েছিল। ওই চক্ৰকে আজকের এই বিশাল সমাবেশ উচিত শিক্ষা দেবে বলে বিরোধীদের বিরুদ্ধে তির ছুঁডেছেন তিনি। অমিত আরও বলেন, সব ধরনের অশুভ শক্তিকে পরাস্ত করে আজকের সমারোহে বড়ো, অবড়ো উভয় সম্প্ৰদায়ের জনতা অংশগ্ৰহণ করার ঘটনা অসমের কাছে এক শুভ ইঙ্গিত বহন করছে।

বিরোধীদের ক্ষুরধার সমালোচনা করে অমিত শাহ বলেন, কংগ্ৰেস আমলে বড়োল্যান্ড সহ সমগ্ৰ অসমে রক্তের বন্যা বইছিল। উগ্রপন্থীদের দাপাদাপি, বন্দুকের ঝনঝনানি ছিল নিত্যনৈমিত্যিক ঘটনা। কিন্তু প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদী অসম তথা উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উগ্ৰপন্থী সমস্যা সমাধান করে শান্তির পরিবেশ ফিরিয়ে এনেছেন। মোদীর প্ৰচেষ্টায় অসমের আটটি উগ্ৰপন্থী সংগঠনের ৭০০-এরও বেশি সক্রিয় সদস্য অস্ত্ৰ সংবরণ করে জাতীয় জীবনের মূল স্রোতে ফিরেছেন। বলেন, কংগ্ৰেস সরকার বহু চুক্তি করেছে। কিন্তু কোনও চুক্তিই কার্যকর করনি। তাদের সব প্ৰতিশ্ৰুতি অকার্যকর হয়েই ছিল, কোনওটাই বাস্তবায়িত হয়নি। অথচ ৭০ বছরে অকার্যকর কাজগুলি এবার বিজেপি সরকার কার্যকর করে বিকাশের ধারা অব্যাহত রেখেছে।

আজকের সমাবেশ থেকে বিটিআর এলাকায় স্থলপথে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে ৫০০ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন তিনি। অমিত বলেন, বড়ো জনগোষ্ঠীর সৰ্বাঙ্গীন বিকাশের জন্য বিজেপি সরকার দায়বদ্ধ। বিটিআর চুক্তির এক বছর পূৰ্তি উপলক্ষ্যে কোকরাঝাড়ে আজ থেকে ২৭ জানুয়ারি পর্যন্ত বিভিন্ন কার্যসূচি অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, গত বছরের ২৭ জানুয়ারি দিল্লিতে বিটিআর শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। এই কার্যসূচির আজ ছিল প্রথমদিন। এদিন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্ৰীর উপস্থিতিতে অদম্য উচ্ছ্বাসিত ছিলেন বড়োল্যান্ডের জনসাধারণ। তা দেখে ভাষণ দিতে গিয়ে অমিত শাহের ঘোষণা, প্ৰধানমন্ত্ৰীর প্ৰতিনিধি এবং দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্ৰী হিসেবে আমি আজ প্ৰতিশ্ৰুতি দিচ্ছি, আগামী কিছুদিনের মধ্যে অসমের মধ্যে সবচেয়ে বিকশিত প্ৰান্ত হিসেবে বিবেচিত হবে বড়োল্যান্ড। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্ৰ মোদী নেতৃত্বাধীন সরকারের প্ৰচেষ্টায় বিটিআর-এ শান্তি এসেছে। এই শান্তি এবং অবশ্য উন্নয়নের ধারা চিরদিন বইতে থাকবে। তিনি প্ৰতিশ্ৰুতি দিতে গিয়ে বলেন, অসমের মধ্যে বিকশিত প্ৰান্ত হিসেবে বিটিআর পরিগণিত হবে। ইউপিপিএল এনডিএ-র শরিক হওয়ায় আনন্দ ব্যক্ত করে বলেন, প্ৰমোদ বড়োর নেতৃত্বে বড়োল্যান্ড বহুদূর এগিয়ে যাবে বলে আশা করেন তিনি।

বিজেপিই অসমে ফের সরকার গঠন করবে বলে জোরের সঙ্গে দাবি করে অমিত শাহ বলেন, বিটিআর নির্বাচন ছিল ট্রেইলার, সেমিফাইনাল। ফাইনাল হল আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন। আজকের সমাবেশ বুঝিয়ে দিয়েছে, উন্নয়ন তথা জনকল্যাণকামী কাজের জন্য অসমের জনতা রাজ্যে ফের বিজেপি সরকার গড়বেন, দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন শাহ।

গতকাল শিবসাগরের জেরেঙাপথারে প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদী সরকারি অনুষ্ঠানে এসে প্রকারান্তরে নির্বাচনের হাওয়া তুলে গেছেন। এর পর আজ কোকরাঝাড় এবং নলবাড়িতে এসে নির্বাচনী বিউগল বাজিয়ে গেছেন আরেক কেন্দ্রীয় শীৰ্ষ নেতা স্বরাষ্ট্রমন্ত্ৰী অমিত শাহ। ঘন কুয়াশার দরুন তাঁর হেলিকপ্টার অবতরণে অসুবিধা সৃষ্টি হয়। ফলে কেন্দ্রীয় মন্ত্ৰী নিৰ্ধারিত সকাল ১০-টার বদলে প্রায় তিনঘণ্টা পর কোকরাঝাড়ের বডোফানগরের অস্থায়ী হেলিপ্যাডে অবতরণ করেন। সেখানে তাঁকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল, অর্থমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা, বিটিআর-প্রধান প্রমোদ বড়ো, অসমে বিজেপির প্রভারী বৈজয়ন্ত পাণ্ডা, দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক দিলীপ শইকিয়া সহ অনেকে। সমাবেশস্থলে বিভিন্ন জাতি-জনগোষ্ঠীর শিল্পীরা নাচে-গানে কেন্ত্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে স্বাগত জানিয়েছেন।

হিন্দুস্থান সমাচার / সমীপ / অরবিন্দ

Dailyhunt
Disclaimer: This story is auto-aggregated by a computer program and has not been created or edited by Dailyhunt. Publisher: Hindusthan Samachar Bangla
Top