Saturday, 14 Dec, 11.36 pm সব খবর

লাইফস্টাইল
মেদিনীপুর শহর সংলগ্ন কংসাবতী নদীর পাড়ে তৈরি হয়ে গেল একটি হস্তশিল্পের হাট।

পঃ মেদিনীপুর, নিজস্ব সংবাদদাতাঃ- বেশকিছু স্বেচ্ছা উদ্যোগী মানুষের চেষ্টা ও প্রশাসনিক সহযোগিতা নিয়ে মেদিনীপুর শহর সংলগ্ন কংসাবতী নদীর পাড়ে তৈরি হয়ে গেল একটি হস্তশিল্পের হাট।জেলা তে থাকা প্রায় ৩০ টির বেশী স্ব-সহায়ক দলের হাতের তৈরি জিনিসপত্রের পসরা নিয়ে এই হাট
পথ চলা শুরু করল শনিবার বিকেল থেকে। প্রতিদিনই শহরের বহু মানুষ সুবিশাল এই নদীর তটে হাজির হতেন সুদৃশ্য সূর্যাস্ত দেখতে। তাই এই উদ্যোগের নাম দেওয়া হলো 'সূর্যাস্ত'।
পশ্চিম মেদিনীপুরের মেদিনীপুর শহরের শেষ প্রান্তে কংসাবতী নদীর একটি বিশাল পাড় তট মিলিয়ে সুদৃশ্য মনোরম একটা অবস্থান রয়েছে। লাল মোরামের উঁচু পাহাড়ের টিলার মত ওই এলাকাটিতে প্রতিদিনই বিকেলে বহু মানুষ হাজির হতেন সুদৃশ্য সূর্যাস্ত দেখতে। ওই স্থানেই কংসাবতী নদীর ওপরে একটি বড় রেল ব্রিজ রয়েছে। কংসাবতী নদীর বিশাল ওই চর এলাকাতে শরত্‍কালের কাশফুল এর একটা আলাদা শোভাও দেখা যায়। এই দৃশ্য উপভোগ করার জন্য বিভিন্ন মৌসুমে পিকনিকও শুরু হয়ে যায়। ওই এলাকাটি কে ব্যবহার করে গুছিয়ে তোলার জন্য উদ্যোগ নিয়েছিলেন মেদিনীপুর শহরের বেশ কিছু শিক্ষক ও স্বেচ্ছা উদ্যোগী মানুষজন। তাতে সহযোগিতা করেছিলেন মেদিনীপুর সদর মহকুমা মহকুমা শাসক দীন নারায়ণ ঘোষ। তাদের উদ্যোগেই ওই এলাকাটিতে ভালো করে সাজিয়ে গুছিয়ে একটি প্রাকৃতিক আসর তৈরি করা হয়েছে। যেখানে প্রতি শনিবার দুপুর তিনটের পর থেকে জেলার বিভিন্ন প্রান্তের স্ব-সহায়ক দলের সদস্যরা নিজেদের প্রস্তুত করা সামগ্রী নিয়ে দোকান সাজিয়ে বসবেন। বসবে খাবারের দোকান ও হাট এর প্রয়োজনীয় দোকান বাজার। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কড়াকড়িভাবে ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে - কোন প্লাস্টিক জাতীয় দ্রব্য ব্যবহার করা যাবে না হাটে, মাইক বা প্রাকৃতিক পরিবেশের ক্ষতিকর কোন রকম জিনিস এই হাটে ব্যবহার করা চলবে না। এলাকাটিকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার উদ্যোগ নিতে হবে সকলকে।
শনিবার বেলা তিনটার সময় এই 'সূর্যাস্ত' উদ্যোগের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জেলা শাসক রেশমি কমল, ছিলেন মহকুমাশাসক দিননারায়ন ঘোষ সহ স্বেচ্ছা উদ্যোগী স্থানীয়রা। এদিন মহকুমা শাসক জানান-এর দ্বারা আগত প্রকৃতিপ্রেমীরা যেমন হস্তশিল্পের নিত্যদিনের একটা বাজার পাবেন। তেমনি স্ব সহায়ক দলের সদস্যরাও একটা বাজার পাবে। মেদিনীপুর শহরের প্রান্তে বিনোদনের আরো একটি ক্ষেত্র তৈরি হয়ে গেল আজ থেকে।

Dailyhunt
Disclaimer: This story is auto-aggregated by a computer program and has not been created or edited by Dailyhunt. Publisher: Sob Khobor
Top