Monday, 17 Feb, 11.21 am THE WALL

নিউজ
বিনা বিজ্ঞপ্তিতে ট্রেন বাতিল, দেড় মাস ধরে ভোগান্তি চলছে বর্ধমান-রামপুরহাট লাইনে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ট্রেন চলাচল নিয়ে লাগাতার বিভ্রান্তি আর তার জেরে ভোগান্তির মুখে পড়তে হচ্ছে বর্ধমান-রামপুরহাট লুপ লাইনের যাত্রীদের। প্রতি সপ্তাহে বেশ কয়েক বার তো বটেই, প্রায় প্রতিদিনই ওই লাইনে চলাচলকারী বিভিন্ন লোকাল ও এক্সপ্রেস ট্রেন বাতিল হচ্ছে। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন যাত্রীরা। সবচেয়ে বেশি ভোগান্তি হচ্ছে নিত্যযাত্রীদের। দেড় মাস ধরে বর্ধমান-রামপুরহাট লুপ লাইনে ট্রেন চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। রেলের পক্ষ থেকে কখনও বলা হচ্ছে সাঁইথিয়া স্টেশনের কাছে সেতুর কাজ চলছে, আবার কখনও বলা হচ্ছে রামপুরহাট স্টেশনের কাছে লাইনে কাজ হচ্ছে। এইসব কারণে প্রায় প্রতিদিন এক বা একাধিক লোকাল ও এক্সপ্রেস ট্রেন বাতিল হচ্ছে অথবা সময়সূচি বদল করা হচ্ছে। কোনও কোনও সময়ে রেল কর্তৃপক্ষ অবশ্য আগাম ঘোষণা করে জানিয়ে দিচ্ছে ট্রেন বন্ধ থাকার কথা। যাত্রীদের অভিযোগ, অধিকাংশ দিনই রেলের কোনও ঘোষণা ছাড়াই ট্রেন বন্ধ থাকছে। ফলে যাত্রীরা বিভ্রান্ত হচ্ছেন, সমস্যায় পড়ছেন। যেমন গতকাল রবিবার ও তার আগের দিন অর্থাত্‍ শনিবার আপ ও ডাউন শিয়ালদহ-রামপুরহাট লোকাল বন্ধ ছিল কিন্তু এব্যাপারে রেলের পক্ষ থেকে কোনও বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়নি বলে অভিযোগ। দিন চারেক আগে আপ ও ডাউন বর্ধমান মালদা লোকাল বন্ধ ছিল। সেই ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটেছিল বলে অভিযোগ, অর্থাত্‍ আগাম কোনও বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়নি।

শনিবারও দেখা গেছে বনপাস স্টেশনে ছোট করে হাতে লেখা একটি বিজ্ঞপ্তি, তাতে লেখা ছিল রবিবার ১৬ ফেব্রুয়ারি আপ মালদা ডাউন লোকাল সকাল পাঁচটার পরিবর্তে সকাল ৭.১৮ মিনিটে ছাড়বে। অথচ এর পরের স্টেশন নয়াদার ঢাল স্টেশনের ম্যানেজার আনন্দ এক্কা বলেন, তাঁর কাছে এরকম কোনও নির্দেশ আসেনি, তিনি জানেনই না রবিবার মালদা লোকাল বর্ধমান স্টেশন থেকে দেরি করে ছাড়বে। নিত্যযাত্রী তথা বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মী বিশ্বজিত্‍ মুখোপাধ্যায় বলেন, 'গত দেড় মাস ধরে এই ভোগান্তি চলছে। কবে যে এটা বন্ধ হবে কে জানে!' নিত্যযাত্রী সন্তোষ চক্রবর্তীও একই কথা বলেন। তাঁর কথায়, 'অর্ধেক দিনই বিভিন্ন ট্রেন বাতিল থাকছে। এতে চরম সমস্যা হচ্ছে। বেশির ভাগ দিন স্টেশন ম্যানেজারও ঠিক মতো বলতে পারছেন না কোন ট্রেন বাতিল, কোনটি রিসিডিউল করা হয়েছে। এতে সমস্যা আরও বাড়ছে।' এই বিষয়ে পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক নিখিল চক্রবর্তী বলেন, 'ট্রেন বাতিল থাকলে নিয়ম অনুযায়ী রেল আগাম বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়ে দেয়।' এর বেশি তিনি কিছু বলেননি।

Dailyhunt
Disclaimer: This story is auto-aggregated by a computer program and has not been created or edited by Dailyhunt. Publisher: The Wall
Top